মঙ্গলবার | ২১ মে ২০২৪
Cambrian

যে দুই নিয়মের ছকে জীবনকে বেঁধেছেন অভিনেত্রী সাই পল্লবী

spot_img
spot_img
spot_img

বিনোদন দুনিয়ার চাকচিক্যের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে যখন নিজেদের প্রকৃত রূপ মেকআপের আড়ালে ধামাচাপা দেন প্রায় সমস্ত তারকাই, সেখানে এই সমীকরণের সম্পূর্ণ বিপরীতে হেঁটে নজির তৈরি করেছেন দক্ষিণী তারকা সাই পল্লবী সেন্থামারাই। মুখের ব্রণের দগদগে দাগ আর উস্কোখুস্কো চুল নিয়েই সাবলীল অভিনয় করে গেছেন। আর তার এই ন্যাচারাল লুকই যেন কেড়েছে দর্শকের মন।
যে দুই নিয়ম নিজের জন্য বেঁধে রেখেছেন দক্ষিণী নায়িকা
১৯৯২ সালে ৯ মে তামিলনাড়ুর নীলগিরি জেলার কোটাগিরিতে জন্ম তার। মা-বাবা এবং বোনের সঙ্গে থাকেন কোচিতে। মা নৃত্যশিল্পী হওয়ায় তাকে দেখেই ছোট থেকে নাচের প্রতি ভালোবাসা তৈরি হয়েছে। সাই পল্লবী কখনও নাচ শেখেননি। কিন্তু প্রশিক্ষিত না হয়েও তার নাচ দর্শকদের মুগ্ধ করে। শুধু অভিনয়ই নয়, তার ব্যক্তিত্ব এবং সাদামাটা থাকার অভ্যাস দর্শকদের তাকে ভালোবাসতে বাধ্য করেছে।
সাই পল্লবী একসময় নিজের চেহারা নিয়ে হীনমন্যতায় ভুগতেন। প্রথম দিকে অভিনয়ের সুযোগও পাচ্ছিলেন না। কিন্তু তিনি হাল ছাড়েননি। বাইরের রূপই যে সবকিছু নয়, তা প্রমাণ করার মরিয়া চেষ্টা তাকে আজ এই জায়গায় নিয়ে এসেছে। তিনি সব সময়ই পাশের বাড়ির মেয়ের মতো দর্শকদের ভালোবাসা পেয়ে চলেছেন।
সাই পল্লবী প্রথম চর্চায় উঠে আসেন একটি গায়ের রং উজ্জ্বল করার ক্রিমের বিজ্ঞাপনকে কেন্দ্র করে। একটি ত্বক উজ্জ্বল করার ক্রিমের বিজ্ঞাপনের জন্য দু’কোটি টাকার প্রস্তাব পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু এ ধরনের বিজ্ঞাপন মেয়েদের জন্য অপমানজনক বলে মন্তব্য করে তিনি এই কোটি টাকার প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন। ২০০৩ সালের ‘কস্তুরীমান’ এবং ২০০৮ সালের ‘ধাম ধুম’ ছবিতে শিশু শিল্পী হিসেবে আত্মপ্রকাশ তার। তারপর পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত থাকায় লম্বা বিরতি নেন অভিনয় থেকে।
২০১৪ সালে জর্জিয়ায় থাকাকালীন পরিচালক আলফোনসে পুথারেন ‘প্রেমাম’ ছবির প্রস্তাব দেন তাকে। সাই পল্লবী তখন জর্জিয়ার পড়াশোনা করছিলেন। ছুটিতে বাড়ি ফিরে তিনি ছবির শুটিং করেন। প্রথম ছবি থেকেই তার অভিনয় পছন্দ করতে শুরু করেন দর্শকরা। প্রথম ছবিতেই সাই পল্লবী প্রমাণ করে দিয়েছিলেন, মুখের দাগ লুকিয়ে ‘সুন্দরী’ না হয়েও দর্শকদের মন জয় করা যায়। এর পরের বছরই পড়াশোনা থেকে এক মাসের বিরতি নিয়ে তিনি দ্বিতীয় ছবি ‘কালি’র শুটিং করেন। ছবিটি ২০১৬ সালে মুক্তি পেয়েছিল।
ক্যারিয়ারের খুব কম সময়ের মধ্যেই তিনি তেলুগু ছবিতে সুযোগ পান। ২০১৭ সালে মুক্তি পাওয়া তার প্রথম তেলুগু ছবি ‘ফিদা’। এরপর ‘দিয়া’, ‘মারি ২’-সহ একাধিক জনপ্রিয় ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি। ২০২০ সালের ফোর্বস ইন্ডিয়া’স ৩০ আন্ডার ৩০’তে তালিকাভুক্ত হয়েছিলেন তিনি। দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রির তিনিই একমাত্র অভিনেত্রী যার নাম এই তালিকায় ছিল। শুধু মেকআপ ছাড়া ত্বক নিয়েই যে পর্দায় আসেন তা নয়, আরও দুটো নিয়ম নিজের জন্য বেঁধে রেখেছেন এই দক্ষিণী নায়িকা।
পর্দায় ছোট পোশাক একেবারেই পরতে চান না তিনি। স্ক্রিপ্টের চাহিদা অনুযায়ী খুব প্রয়োজন না হলে ছোট পোশাক এড়িয়েই চলেন। শুটিং শুরুর আগে পরিচালকদের সাফ জানিয়েও দেন সেটা। নিজের জন্য তার আরও একটি বেঁধে রাখা নিয়ম হল পর্দায় কোনও ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে অভিনয় নয়। বিশেষ করে পর্দায় নায়কের সঙ্গে চুম্বন একেবারেই পছন্দ নয় তার।
সাই পল্লবীর আরও একটি গুণ অনেকেই জানেন না। একজন দক্ষ অভিনেত্রী হওয়ার পাশাপাশি তিনি একজন চিকিৎসকও। ২০১৬ সালে জর্জিয়ার টিবিলিসি স্টেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিবিএস ডিগ্রি অর্জন করেছেন তিনি।

- Advertisement -spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ সংবাদ