শুক্রবার | ১৯ জুলাই ২০২৪
Cambrian

মুহূর্তেই লক ভেঙে গাড়ি নিয়ে পালাতো তারা

spot_img
spot_img
spot_img

নিজস্ব প্রতিবেদক
রাজধানীর দারুস সালাম থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে সংঘবদ্ধ গাড়ি চোর চক্রের মূলহোতাসহ পাঁচজনকে আটক করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।
বুধবার (১১ আগস্ট) সকালে মিরপুর বেড়িবাঁধ এলাকা থেকে ৫ জনকে আটক করা হয়।
তারা হলেন, সোহেল (২৬), সাগর (২৩), সাকিব হোসেন (২৫), হাসান (২৬) ও কামরুজ্জামান (৩৯)।
তাদের কাছ থেকে চারটি পিকআপ, সাতটি টায়ার রিং, দুটি টায়ার, একটি টুলস বক্স, একটি চাবির ছড়া ও সাতটি মোবাইল উদ্ধার করে র‍্যাব।
র‍্যাব জানিয়েছে, আসামিরা মুহূর্তেই যে কোনো গাড়ির লক ভাঙা বা বিকল্প চাবি দিয়ে গাড়ি স্টার্ট দিতে সক্ষম। গাড়ি শনাক্তের জিপিএস ট্র‍্যাকার ডিভাইসও বিকল করে দিয়ে গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যেতেন তারা।
রাজধানীর কারওয়ানবাজার র‍্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাব-৪ এর অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মো. মোজাম্মেল হক বলেন, আটকরা পরস্পরের যোগসাজশে গত তিন বছর ধরে রাজধানী ও দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে মিনি পিকআপ চুরি করে আসছেন। আটক সোহেল ও সাগর ঢাকার একটি হাইস্কুল ও নারায়ণগঞ্জের একটি কলেজে পড়াশোনা করতেন। তারা সম্পর্কে আপন ভাই, উভয়েই মাদকাসক্ত।
পারিবারিক অসচ্ছলতার কারণে এবং মাদকের টাকা জোগাড় করতেই গাড়ি চুরি শুরু করেন তারা। বিশেষ করে, সোহেলের গাড়ি চালানোর দক্ষতা থাকায় পিকআপের লক ভাঙা ও যেকোনো চাবি দিয়ে গাড়ি স্টার্ট করার বিষয়ে তিনি অভিজ্ঞ। গাড়িতে থাকা ট্র্যাকিং ডিভাইস দ্রুত শনাক্ত করে তা অকেজো করে দিতে পারেন সাগর।
র‍্যাবের এ কর্মকর্তা বলেন, আসামিরা পার্কিংয়ে থাকা পিকআপই তারা বেশ চুরি করতেন। ড্রাইভার বা মালিকের অনুপস্থিতিতে সুবিধামতো সময়ে বিশেষ কৌশলে গাড়ির লক ভেঙে ও বিশেষ ধরনের মাস্টার চাবি দিয়ে স্টার্ট দিয়ে গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যেতেন।
এছাড়া, তারা মাদকসেবী চালকের সঙ্গে সখ্যতা তৈরি করে পিকআপ ভ্যান চুরি করতে তাদের নিয়মিত উদ্বুদ্ধ করতেন। বিনিময়ে গাড়ি চুরি করে মালিকের কাছ থেকে আদায় করা টাকার একটি অংশ চালককে দিতেন। এর বাইরে চালকদের খাবারে চেতনানাশক মিশিয়ে অজ্ঞান করে পিকআপ নিয়ে পালিয়ে যেতেন।
চোরাই গাড়ির মালিককে ফোন দিয়ে গাড়ি ফিরিয়ে দেওয়ার বিনিময়ে মোটা অঙ্কের টাকা আদায় করতেন তারা। এর বাইরে চোরাই গাড়ির রং পরিবর্তন করে ভুয়া নম্বর প্লেট লাগিয়ে কম দামে বিক্রি করে দিতেন। এ দুই প্রক্রিয়ায় ব্যর্থ হলে গাড়ির যন্ত্রাংশ খুলে বিক্রি করতেন।

- Advertisement -spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ সংবাদ