শুক্রবার | ১ মার্চ ২০২৪
Cambrian

‘ভুতুড়ে’ বলয়

spot_img
spot_img
spot_img

ক্র্যাবনিউজ ডেস্ক
কৃষ্ণগহ্বর আজও মহাবিশ্বের অন্যতম এক রহস্য হয়ে রয়েছে। কৃষ্ণগহ্বরের ভেতরের পরিবেশটা কেমন, তা এখনো কল্পনার অতীত। তবে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার প্রকাশিত সাম্প্রতিক কিছু ছবি থেকে অন্তত একটি কৃষ্ণগহ্বর সম্পর্কে কিছুটা হলেও ধারণা পাওয়া গেছে। তবে ওই কৃষ্ণগহ্বরটির চারপাশ ঘিরে উজ্জ্বল ‘ভুতুড়ে’ বলয় যেন রহস্য আরও জমাট করেছে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানায়, কৃষ্ণগহ্বরটির নাম ভি৪০৪ সিগনি। এর অবস্থান পৃথিবী থেকে ৭ হাজার ৮০০ আলোকবর্ষ দূরে। শূন্য মাধ্যমে আলো প্রতি সেকেন্ডে প্রায় তিন লাখ কিলোমিটার অতিক্রম করে। এভাবে আলো এক বছরে যে দূরত্ব অতিক্রম করে, তা–ই এক আলোকবর্ষ। ভি৪০৪ সিগনির সঙ্গে একটি সৌরব্যবস্থায় আরেকটি নক্ষত্র রয়েছে। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, ওই নক্ষত্রের ভর আমাদের সূর্যের ভরের অর্ধেক।

ভি৪০৪ সিগনি কৃষ্ণগহ্বরটির ছবি তুলেছে নাসার মহাশূন্যে ভেসে থাকা দুটি দূরবীক্ষণ। এগুলো হলো চন্দ্র এক্স–রে অবজারভেটরি ও নিল গেহরেলস সুইফট অবজারভেটরি। এ দুই দূরবীক্ষণের মধ্যে সুইফট অবজারভেটরি ২০১৫ সালের জুনে প্রথম ওই কৃষ্ণগহ্বরের সৌরব্যবস্থায় এক্স রশ্মির বিস্ফোরণ শনাক্ত করে। ওই বিস্ফোরণের কারণেই কৃষ্ণগহ্বরটির চারপাশ ঘিরে শক্তির বলয় তৈরি হয়েছে।


সাধারণ তত্ত্ব অনুসারে, কৃষ্ণগহ্বরের ভর এতটাই বেশি হয় এবং তা নিজের দিকে এমন প্রবল শক্তিতে অন্য জিনিসকে টানে যে তাতে আলো পর্যন্ত হারিয়ে যায়। তবে নাসার ছবি বিশ্লেষণ করে বিজ্ঞানীরা বলছেন, ভি৪০৪ সিগনি তার প্রতিবেশী ছোট নক্ষত্রটি থেকে সবকিছু নিজের চারপাশ ঘিরে থাকা বলয়ের দিকে টেনে নিচ্ছে।
নাসা জানিয়েছে, তাদের চন্দ্র এক্স–রে অবজারভেটরি ২০১৫ সালের ১১ থেকে ২৫ জুলাইয়ের মধ্যে কৃষ্ণগহ্বরটিকে পর্যবেক্ষণ করেছে। আর সুইফট অবজারভেটরি ওই বছরের ৩০ জুন থেকে ২৫ আগস্ট পর্যন্ত পর্যবেক্ষণ করে। এসব পর্যবেক্ষণ থেকে জানা গেছে, কৃষ্ণগহ্বরটির চারপাশ ঘিরে আটটি বলয় তৈরি হয়েছে। বিজ্ঞানীরা বলছেন, এসব বলয় নিয়ে বিশদ গবেষণায় কৃষ্ণগহ্বর সম্পর্কে আরও ভালোভাবে ধারণা পাওয়া যেতে পারে।

- Advertisement -spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ সংবাদ