মঙ্গলবার | ২১ মে ২০২৪
Cambrian

পশ্চিমবঙ্গে লকডাউন বৃদ্ধি

spot_img
spot_img
spot_img

ক্র্যাবনিউজ ডেস্ক
ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আংশিক লকডাউনের মেয়াদ ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এর আগের ঘোষণামতে, এই লকডাউনের মেয়াদ ছিল ১৫ আগস্ট পর্যন্ত। আজ বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই ঘোষণা দেন। তবে আংশিক লকডাউনে গণপরিবহন চালু থাকলেও লোকাল ট্রেন চলাচলের ব্যাপারে কোনো নির্দেশ দেওয়া হয়নি।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গে করোনার সংক্রমণ এবং মৃত্যুহার ধীরে ধীরে কমে আসছে। স্বস্তি ফিরে আসছে সাধারণ মানুষের মধ্যে। যদিও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা সেখানে তৃতীয় ঢেউ আঘাত হানার আশঙ্কা করছেন।
সংবাদ সম্মেলনে মমতা বলেছেন, রাজ্যের গ্রামাঞ্চলের মানুষের ৫০ শতাংশের টিকাকরণ সম্পন্ন হলেই লোকাল ট্রেনের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা তুলে দেওয়া হবে। তিনি বলেন, ‘আর কয়েকটা দিন কষ্ট করুন। করোনা এখন আমাদের রাজ্যে কমে আসছে। তাই এই রাজ্যের গ্রামের ৫০ শতাংশ মানুষের টিকাকরণ হয়ে গেলেই ছেড়ে দেওয়া হবে লোকাল ট্রেন। রাজ্যজুড়ে দ্রুত টিকাকরণ কর্মসূচি চলছে। এখন পর্যন্ত এই রাজ্যে ৩ কোটি ৩২ লাখ মানুষকে টিকা দেওয়া হয়েছে।’
এ সময় ক্ষোভ প্রকাশ করে মমতা বলেন, এই রাজ্যের করোনা আবহের মধ্যে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু নিয়ে মিথ্যা প্রচার চলছে।
পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের এক নির্দেশনায় বলা হয়, রাত ৯টার পরিবর্তে রাত ১১টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত কাউকে বিনা প্রয়োজনে বাড়ির বাইরে বের হতে দেওয়া হবে না।
এই নিয়ম ভঙ্গকারীকে ২০০৫ সালের বিপর্যয় মোকাবিলা আইনানুযায়ী শাস্তি দেওয়া হবে। গণপরিবহন চালু থাকলেও লোকাল ট্রেন চলাচলের ব্যাপারে কোনো নির্দেশ দেয়নি রাজ্য সরকার । তবে মেট্রোরেল যথারীতি করোনাবিধি মেনে চলবে। রাজ্যের সব জায়গায় বাস, মিনিবাস, ট্যাক্সি, স্কুটার বা অটো চলবে। সরকারি ও বেসরকারি অফিসও ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়ে চালু থাকবে। অফিসের সময় সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। ঘোষণায় বলা হয়েছে, রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি এখনো পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে না এলেও করোনার গ্রাফ নিম্নমুখী। তাই রাজ্য থেকে লকডাউন একবারে তুলে না নিয়ে কিছু কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দিয়ে আংশিক লকডাউনের মেয়াদ ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।
ঘোষণায় আরও বলা হয়, ব্যাংক খোলা থাকবে সকাল ১০টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত। তবে রাজ্যের সব স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকবে। চলবে স্টাফ স্পেশাল ট্রেন। হাটবাজার, মাছের বাজার, কাঁচাবাজার খোলা থাকবে সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত। অন্যান্য দোকানপাট খোলা থাকবে বেলা ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। শপিং মল বেলা ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। সিনেমা হল ও স্টেডিয়াম খোলা থাকবে ৫০ শতাংশ মানুষ বা দর্শক নিয়ে। পারলার ও সেলুন খোলা থাকবে বেলা ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত। টিকা নেওয়া থাকলে সকালে প্রাতর্ভ্রমণকারীদের ঢুকতে দেওয়া হবে পার্কে। ৫০ শতাংশ কলাকুশলী শুটিংয়ে অংশ নিতে পারবেন টিকা নিয়ে।
আর শহরের বার, রেস্তোরাঁ খোলা রাখা যাবে দুপুর ১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত।
নির্দেশনায় আরও বলা হয়, হোম ডেলিভারি, অনলাইন পরিষেবা, অত্যাবশ্যকীয় পণ্য পরিষেবা চালু থাকবে। খোলা থাকবে ওষুধ এবং চিকিৎসাসামগ্রীর দোকান। বিয়ের অনুষ্ঠানে ৫০ জন এবং অন্তেষ্ঠিতে ২০ জন যোগ দিতে পারবেন।

- Advertisement -spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ সংবাদ