শুক্রবার | ১ মার্চ ২০২৪
Cambrian

বিপর্যস্ত বিশ্ব ঘুরে দাঁড়াক, আজ খুশির দিনই হোক বেদনার শেষ দিন

spot_img
spot_img
spot_img

নঈদ আনন্দময়। করোণা বিপর্যস্ত বিশ্বে দ্বিতীয় বার উদযাপিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আযহা। যাকে বাংলাদেশে কোরবানির ঈদ বলা হয়। যে মহামারী এবারও ঈদ আনন্দকে বেদনায় ঢেকে দিয়েছে। শোকে পাথর করেছে। এই ঘাতক মহামারী গত বছর ঈদুল আযহাসহ অন্যান্য ধর্মের উৎসব কেড়ে নিয়েছিলো।

মুসলমানদের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসবে আল্লাহর নামে পশু জবাই করে মাংস গরিব-দুঃখী মানুষ, নিকটতম আত্মীয় স্বজন, পরিচিতজন বন্ধু-বান্ধবসহ শুভাকাঙ্ক্ষীদের মধ্যে বিতরন করা হয়। মুসলিম ধর্ম বিষয়ক বক্তাগন বলে থাকেন, আল্লাহ বা সৃষ্টিকর্তার উদ্দেশ্যে, তার আদেশ পালনের জন্য সন্তুষ্টি লাভের জন্য পশু জবাই বা উৎসর্গ করা হয়। যা স্রষ্টার প্রতি আনুগত্য প্রদর্শন।

মুসলিম ধর্মের শ্রেষ্ঠ নবী সর্বশেষ নবী হযরত মুহাম্মদ মোস্তফা সাল্লাল্লাহু সালামের অনুসারীরা এই উৎসব ভাব গাম্ভীর্যের সাথে পবিত্রতার সাথে পালন করে থাকেন । ঈদের দিন সকালে বিভিন্ন মসজিদে ঈদগাহে নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। যদিও করোনার কারণে এবছর সীমিত পরিসরে নামাজ আদায় করার নির্দেশনা থাকার ফলে ঈদগাহের সংখ্যা, ঈদের নামাজ আদায়ের মসজিদের সংখ্যা কম।

মানুষের মনে আনন্দ না থাকলেও ধর্মীয় রীতি পালন করছেন করণা কষাঘাতে জর্জরিত মানুষ। বিশ্বজুড়ে একটাই প্রার্থনা, এই ঈদের আনন্দঘন মুহূর্ত, উচ্ছ্বাস-আশা ভরা দিনে এই মিনিট সেকেন্ড থেকেই শুরু হোক আগের সেই পৃথিবী। যেখানে করোনা ছিল না, ভয় ছিল না, বিশ্বজুড়ে ঘোরাঘুরি ওড়াউড়ি ছিল উন্মুক্ত, সেই পৃথিবী। আজ আজ এই খুশির দিনে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন মহামারী দুর্যোগ দুর্ভোগ রোগ-শোক তাব 2 করে দিবেন এমন আশাবাদ প্রকাশ করেই ইমামগণ নামাজপূর্ব বয়ান এবং খুতবা করেছে। করোনামুক্ত পৃথিবী আজ এখনই হোক এমন প্রার্থনা ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের। আজ হোক বেদনা ভরা করণা মহামারীর সময়ের সর্বশেষ দিন। আগামীকাল থেকে উঠুক এক নতুন সূর্য । যাতে কোন আতঙ্ক, স্বজন হারানোর শোক, মহামারীর ক্ষত, দীর্ঘশ্বাস অনিশ্চয়তা’ এসব কিছুই থাকবে না। শুধু মানবতা আর বৈষম্যহীন মানবিক বিশ্ব বিনির্মাণে আবার ঘুরে দাঁড়াতে আলো ছাড়াক এই প্রত্যাশিত সম্ভাবনাময় সূর্য।

এদিকে সাধারণত দিনের প্রথমভাগে ঈদের নামাজের জামাত শেষ হয়ে যায়। মসজিদ ঈদগা থেকে নামাজ আদায় কারী মুসল্লীরা বের হয়ে কুকিলা পশু জবাই করেন।

মোটকথা মানুষের মধ্যে যে বৈষম্য অনাচার লোভ-লালসা মন্দত্ব, ঘৃণা রয়েছে তাকে নিশ্চিহ্ন করে, নিষ্প্রাণ করে ফেলা, যেমন করে একটি ধারালো ছুরি দিয়ে পশুর গলাকেটে তাকে নিষ্প্রাণ করা হয়। মুসলমানদের ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী রান্না করা খাবারের উপযুক্ত করার প্রথম ধাপ জীবিত পশুকে ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী জবাই করে প্রাণহীন করা।

এদিকে ঈদুল আযহা উপলক্ষে নিউজ bd.com এর সকল পাঠক বিজ্ঞাপন দাদা ও শুভানুধ্যায়ীদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন পোর্টালের সম্পাদক। এছাড়া এই নিউজ পোর্টালে কর্মরত নিউজ পোর্টালে সংশ্লিষ্ট সকলকে ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

 

- Advertisement -spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ সংবাদ