বৃহস্পতিবার | ১৩ জুন ২০২৪
Cambrian

ইভ্যালি বন্ধ, ফিরে এলেন মন্ত্রণালয়ের পত্রবাহক

spot_img
spot_img
spot_img

নিজস্ব প্রতিবেদক
সম্পদ ও দায় বিবরণী ১৯ আগস্টের মধ্যে, মোট গ্রাহক ও গ্রাহকের কাছে দেনার পরিমাণ ২৬ আগস্টের মধ্যে এবং মার্চেন্টদের কাছে দেনার পরিমাণ ২ সেপ্টেম্বরের মধ্যে জানাতে আজ বৃহস্পতিবার ইভ্যালিকে চিঠি দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।
তবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পত্রবাহক গিয়ে দেখেছেন, ইভ্যালি কার্যালয় তালাবদ্ধ। কাউকে না পেয়ে চিঠি পৌঁছাতে না পেরে ফিরে এসেছেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের চিঠিবাহক।
এসব তথ্য জানাতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এর আগে গত ১৯ জুলাই কোম্পানিটিকে চিঠি দিয়েছিল। একই সঙ্গে কারণ দর্শানোর নোটিশও দেওয়া হয়েছিল ওই দিন। জবাবে ছয় মাস সময় চেয়ে গত ২ আগস্ট বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে আবেদন করে ইভ্যালি।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বুধবার আন্তমন্ত্রণালয়ের বৈঠকে সিদ্ধান্ত নিয়ে ছয় মাস সময়ের আবেদন নাকচ করে দেয় এবং নতুন সময়সীমা নির্ধারণ করে। সেটাই চিঠি আকারে ইভ্যালিকে দেওয়া হয় আজ।
ইভ্যালিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বলেছিল, গত ১৪ মার্চ পর্যন্ত গ্রাহক ও মার্চেন্টদের কাছে মোট ৪০৭ কোটি টাকা দায়ের বিপরীতে ইভ্যালির কাছে মাত্র ৬৫ কোটি টাকার চলতি সম্পদ কেন? বাকি টাকা ইভ্যালির কাছে থাকলে বিস্তারিত তথ্য দিতে হবে, না থাকলে পরিপূর্ণ ব্যাখ্যা দিতে হবে।
গত ১৫ জুলাই পর্যন্ত গ্রাহক ও মার্চেন্টদের কাছে দায় এবং তা পরিশোধের বর্তমান অবস্থা ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা, ব্যবসা শুরুর পর গ্রাহকদের কাছ থেকে ইভ্যালি কত টাকা নিয়েছে, মার্চেন্টদের কত টাকা পরিশোধ করেছে এবং প্রশাসনিক ও অন্যান্য খাতে কত ব্যয় করেছে, তার পূর্ণাঙ্গ বিবরণ জানাতে হবে।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. হাফিজুর রহমান আজ বলেন, ‘যে সময়ের মধ্যে যে তথ্য দেওয়া সম্ভব, সেই সময়ই ইভ্যালিকে দেওয়া হয়েছে। আমরা আশা করছি কোম্পানিটি যথাসময়ে তথ্য দেবে।’
জানা গেছে, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কাছে ইভ্যালির বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল ৬ হাজার ৭৪৭টি। এর মধ্যে ৪ হাজার ১৪৫টি অভিযোগ নিষ্পত্তি করা হয়েছে। নিষ্পত্তির অপেক্ষায় আছে ২ হাজার ৬০২টি অভিযোগ।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকেলে চিঠিবাহক ইভ্যালি কার্যালয়ের সামনে গিয়ে কাউকে খুঁজে পাননি। কোম্পানিটির কার্যালয় পরিপূর্ণভাবে বন্ধ।
ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ রাসেল গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা এখনো চিঠি পাইনি।’ অফিস বন্ধ ও খোলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমরা আপাতত হোম অফিস করছি। পরিস্থিতি বুঝে খোলা হবে।’

- Advertisement -spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ সংবাদ