বৃহস্পতিবার | ১৩ জুন ২০২৪
Cambrian

অনলাইনে জঙ্গি তৎপরতা বৃদ্ধি, পুলিশও নজরদারি বাড়িয়েছে

spot_img
spot_img
spot_img

নিজস্ব প্রতিবেদক
অনলাইনে জঙ্গি তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। জঙ্গিদলে সদস্য সংগ্রহ, মোটিভেশন, হামলা, টার্গেটকৃত ব্যক্তিকে অনুসরণ করাসহ হত্যাকান্ড বা হামলা ঘটাতেও ব্যবহার করা হচ্ছে ইন্টারনেটভিত্তিক প্লাটফর্ম। অনলাইনে জঙ্গি তৎপরতা বাড়ার বিষয়টি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীরও নজরে পড়েছে। তবে এতে উদ্বগের কিছু নেই বলে আশ্বস্ত করে পুলিশ জানিয়েছে, তারা তৎপর রয়েছেন।
এদিকে আড়াই মাস আগে নারায়ণগঞ্জে ট্রাফিক বক্স থেকে উদ্ধারের পর যে বোমাটি নিষ্ক্রিয় করেছিল পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট; সে বোমাও তৈরি করা হয়েছিলো অনলাইনে প্রশিক্ষণ নিয়ে।
ওই বোমা উদ্ধার মামলা তদন্তের একপর্যায়ে রোববার রাতে যাত্রাবাড়ী থেকে দুজনকে গ্রেপ্তারের পর বেরিয়ে এসেছে বোমা-রহস্য। মো. শফিকুর রহমান হৃদয় ওরফে খাত্তাব ও মো. খালিদ হাসান ভূইয়া ওরফে আফনান নামের ওই দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে কাউন্টার টেররিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি)।
আজ সোমবার দুপুরে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে সিটিটিসি প্রধান মো. আসাদুজ্জামান বলেন, গ্রেপ্তার দুইজন নব্য জেএমবির সদস্য। তারা অনলাইনে সংগঠনের প্রশিক্ষক ফোরকানের কাছে বোমা তৈরি শিখেছিলেন। অনলাইনে জঙ্গিদের তৎপরতা বেড়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। পুলিশও তৎপর রয়েছে।
গত ১৬ মে সাইনবোর্ড এলাকায় পুলিশের ট্রাফিক বক্সে পাওয়া বোমাটি রিমোর্ট কন্ট্রোলের ক্রুটির কারণে বিস্ফোরণ ঘটানো যায়নি বলে জানান আসাদুজ্জামান।
যাত্রাবাড়ী থেকে গ্রেপ্তাররা হলেন- মো. শফিকুর রহমান হৃদয় ওরফে খাত্তাব ও মো. খালিদ হাসান ভূইয়া ওরফে আফনান।
তাদের কাছ থেকে ৪০০ গ্রাম বিস্ফোরক জাতীয় পদার্থ, তিনটি বিউটেন গ্যাসের ক্যান, রিমোট কন্ট্রোল ডিভাইস, চার প্যাকেট বিয়ারিং বল, টেপ, আইইডি তৈরির ম্যানুয়াল ও একটি মোটর সাইকেল জব্দ করা হয়েছে।
সিটিটিসি প্রধান মো. আসাদুজ্জামান বলেন, গত ১১ জুলাই আড়াইহাজার থানার নোয়াগাঁও থেকে বোমা ও বোমা তৈরির সরঞ্জামসহ গ্রেপ্তার নব্য জেএমবির সামরিক শাখার সদস্য আব্দুল্লাহ আল মামুনের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে এই দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
“তারা জানিয়েছে, নব্য জেএমবির আমির মাহাদী হাসান জন ওরফে আবু আব্বাস আল বাঙ্গালীর নির্দেশে ১৬ মে ট্রাফিক বক্সে বোমাটি রাখা হয়েছিল। শফিকুর ও খালিদ ম্যানুয়াল ও ভিডিও দেখে বোমা তৈরির অনলাইন প্রশিক্ষক ফোরকানের তত্ত্বাবধানে আব্দুল্লাহ আল মামুনের কক্ষে আইইডিটি তৈরি করে।”
ফোরকান তিনি বলেন, “তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। এই পর্যন্ত জানতে পেরেছি ফোরফান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়নের শিক্ষার্থী।”

- Advertisement -spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ সংবাদ